Bank Clark arrested: কোটি কোটি টাকা চুরির ২৫ বছর পর ধৃত ব্যাঙ্ক ক্লার্ক! হয়েছিল প্লাস্টিক সার্জারি

এই ঘটনা ব্যাঙ্ক জালিয়াতির। ঘটেছিল প্রায় ২৫ বছর আগে। আর মাঝের টানা ২৫ টি বছর ধরে অপরাধীকে শায়েস্তা করার চেষ্টায় ছিলেন তদন্তকারীরা। ধৈর্য হারাননি তদন্তকারীরা। চিনে ৪.৮ কোটি পাউন্ডের ব্যাঙ্র জালিয়াতির মামলায় এই তদন্ত চলেছে। চিনের মুদ্রার অঙ্কে তা ছিল ৩.৯৮ মিলিয়ন ইউয়ান। আর তার খোঁজের সূত্র ধরে ২৫ বছর পর ধরাপড়লেন অভিযুক্ত ব্যাঙ্ক কর্মী চেন ইয়েলে।

ব্য়াঙ্কের ক্লার্ক হিসাবে এই অভিযুক্ত মহিলা চেন ইয়েলে কর্মরত ছিলেন। ব্যাঙ্ক থেকে বিপুল পরিমাণ নগদের হাত সাফাইয়ের পর তিনি প্লাস্টিক সার্জারি করে নিজের রূপ পাল্টে ফেলেন। আর সেই ফর্মুলাতেই তিনি গা ঢাকা দিতে পারেন। দিনের পর দিন প্রশাসনের চোখে ধুলো দিয়ে কোটি কোটি টাকা লুঠ করে ফেলেন তিনি। তবে অপরাধী হিসাব কিছু ভুল করে পেলেছিল চেন। আর সেই সূত্র ধরেই তার হাতে হাতকড়া পড়ে যায়। চিনের ইয়েকিংয়ের চায়না কনস্ট্রাকশন ব্যাঙ্কে ১৯৯৭ সালে কর্মরত ছিল অভিযুক্ত চেন ইয়েলে। সেই সময় চিনের ওই ব্যাঙ্কে একটি টাকার এন্ট্রিতে ভুল দেখা যায়। যার জেরে অপরাধী টাকা তোলার আগেই ওই অ্যাকাউন্টে কিছু এডিট করে নেন। অভিযোগ, যে পরিমাণ অর্থের ফারক ছিল, তা চেন ইয়েলে ধিরে ধিরে নিজের অ্যাকাউন্টে কৃত্রিমভাবে সরাতে থাকে। এরপর কাছের একটি ব্রাঞ্চের অ্যাকাউন্টে সেই টাকা পাঠিয়ে, সেই ব্যাঙ্কে ছুটির দিনে চোরা গোপ্তা পথে ঢোকে চেন। তার পরিকল্পনা একেবারে কার্যকর হয়ে যায়। ১৯৯৭ সালে প্রযুক্তি সেভাবে পোক্ত না হওয়ায় সেই বিপুল পরিমাণ টাকা আত্মসাৎ করে নেয় চেন।

নিজের অ্যাকাউন্টে এরপর নতুন টাকা যোগ করে রাতারাতি কোটিপতি হয়ে যান চেন। এরপর বিভিন্ন সুটকেসে টাকা ভাগ করে রেখে শহরের নানা প্রান্তের ব্যাঙ্কে সে টাকা রাখে। গোটা প্রক্রিয়া শেষ হলে সে প্লাস্টিক সার্জারি করে নেয়। যাতে তাকে কেউ চিনতে না পারে। তবে চেন কোন সার্জারি করেছে, তা সঠিক জানা যায়নি। চেন জানিয়েছে, তার ভাইবোনদের সঙ্গে তার থাকা বিভিন্ন অ্যাকাউন্টে টাকা চলে যায়। এই গোটা কর্মকাণ্ড ধরা পড়ে ২৫ বছর পর।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup