ভেটকি মাছের ৩ ইঞ্চি কাঁটা আটকে গিয়েছিল গলায়, SSKM–এর তৎপরতায় রক্ষা রোগীর

ভেটকি মাছে রসনাতৃপ্তি করতে গিয়ে ঘটেছিল বিপত্তি। গলায় আটকে গিয়েছিল ৩ ইঞ্চি কাঁটা। ১৬ দিন ধরে গলায় সেই কাঁটা আটকে থাকায় নাজেহাল অবস্থা হয়ে উঠেছিল প্রৌঢ়ার। তিনি কিছুতেই ঘাড় ঘোড়াতে পারছিলেন না। তার ওপর অসহ্য যন্ত্রনাও সইতে পারছিলেন না। শেষ পর্যন্ত এসএসকেএম হাসপাতালের চিকিৎসকদের তৎপরতায় রেহাই পেলেন প্রৌঢ়া। অস্ত্রোপচার করে তার গলা থেকে ৩ ইঞ্চির কাঁটা বের করলেন এসএসকেএমের চিকিৎসকরা। বর্তমানে ওই প্রৌঢ়া সুস্থ রয়েছেন।

আরও পড়ুন: গোড়ালি থেকে কেটে গিয়েছিল শিশুর পায়ের পাতা, জুড়ে দিল এসএসকেএম হাসপাতাল

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, ৫৭ বছরের ওই প্রৌঢ়ার নাম রোকেয়া বিবি। তিনি বসিরহাটের বাসিন্দা। ঘটনার সূত্রপাত হয়েছিল গত ২৯ অক্টোবর। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দুপুরে তিনি খেতে বসেছিলেন। সকলের পাতে ছিল ভেটকি মাছ। ফলে আমেজ করেই পরিবারের বাকি সদস্যদের সঙ্গে খাচ্ছিলেন রোকেয়া বিবি। তিনি মুখে মাছের একটি বড় অংশ ভরেছিলেন। চিবিয়ে ছোট কাঁটাগুলিকে বের করে দিলেও তিন ইঞ্চির কাঁটা বের করতে পারেননি। সেটি বিঁধে গিয়েছিল খাদ্যনালীতে। প্রথম দিকে তিনি বিষয়টিতে গুরুত্ব না দিলেও দিন যেতেই গলায় অসহ্য যন্ত্রণা হতে শুরু করে প্রৌঢ়ার । ঘটনায় গত শুক্রবার তিনি স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে যান। এক্স রে করার পর চিকিৎসক জানতে পারেন কাঁটার অবস্থান। এরপর তিনি এসএসকেএম হাসপাতালে পাঠান। সেখানে ইএনটি বিভাগের চিকিৎসকরা ভালো করে খাদ্যনালী পরীক্ষা করে দেখেন। তারা জানতে পারেন, খাদ্যনালী ফুটো করে গলায় আটকে রয়েছে ওই কাঁটা। যার ফলে সমস্যা হচ্ছে। তখন চিকিৎসকরা ব্যথা কমানোর জন্য অ্যান্টিবায়োটিক দেন। ব্যথা কমার পর অস্ত্রোপচার করা হয় ওই প্রৌঢ়ার।

গত মঙ্গলবার অর্থপেডিক বিভাগ থেকে সি আর্ম যন্ত্র নিয়ে এসে বিভাগীয় প্রধান ডা: দেবাশিস দেববর্মন এবং ডা: অরুণাভ সেনগুপ্তের করতে নেতৃত্বে অস্ত্রোপচার করা হয়। সঙ্গে ছিলেন অন্যান্য চিকিৎসকরা। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্তমানে ওই রোগী সুস্থ রয়েছেন। চিকিৎসকদের বক্তব্য, খাদ্যনালীর আশেপাশে অনেক স্নায়ু রয়েছে, যেগুলি সরাসরি মস্তিষ্কের সঙ্গে যুক্ত।সেক্ষেত্রে কাঁটা একটু এদিক ওদিক হলেই রোগীর প্রাণহানি পর্যন্ত ঘটতে পারত। তবে চিকিৎসকের তৎপরতায় শেষ পর্যন্ত রক্ষা পেলেন প্রৌঢ়া। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, রোগীকে দু-একদিনের মধ্যে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে।