Govt to Banks after IMPS Glitch: ‘ভুল করে’ গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে ৮২০ কোটি, নির্দেশিকা গেল সরকারি ব্যাঙ্কগুলির কাছে

অনলাইন লেনদেনে ত্রুটি নিয়ে ব্যাঙ্কগুলিকে সাবধান করল কেন্দ্রীয় সরকার। গত সপ্তাহেই অনলাইন লেনদেন ব্যবস্থার ত্রুটির জেরে ৮২০ কোটি টাকা ভুল করে ঢুকেছিল ইউকো ব্যাঙ্কের গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে। সেই ঘটনার পর এবার নড়েচড়ে বসেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই আবহে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রকের তরফ থেকে নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে সরকারি ব্যাঙ্কগুলির কাছে। অনলাইন ব্যবস্থা ভালো করে খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে ব্যাঙ্কগুলিকে। পাশাপাশি ভবিষ্যতে যদি সাইবার হামলা হয়, তার জন্যেও প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে ব্যাঙ্কগুলিকে। (আরও পড়ুন: ইম্ফলের আকাশে রহস্যময় UFO! চরম দুর্ভোগ কলকাতা থেকে উড়ে যাওয়া বিমানের যাত্রীদের)

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক ইউকোর অনেক গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে ভুল করে টাকা ঢুকেছিল। জানা যায়, ইমিডিয়েট পেমেন্ট সিস্টেম বা আইএমপিএস-এ গলদ থাকার জেরেই এই ঘটনা ঘটেছে। মোট ৮২০ কোটি টাকা ভুল করে অন্যের অ্যাকাউন্টে গিয়েছে বলে জানা যায়। এর মধ্যে অধিকাংশ টাকাই নাকি ব্যাঙ্ক ফেরাতে সক্ষম হয়েছে। তবে এখনও প্রায় ১৭১ কোটি টাকা ফেরাতে অক্ষম হয়েছে ইউকো। এই পরিস্থিতিতে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয় ইউকোর তরফ থেকে। ব্যাঙ্কটি কলকাতা ভিত্তিক হওয়ায় কলকাতা পুলিশেই এফআইআর করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: ডিএ-র অপেক্ষায় সরকারি কর্মীরা, একটি সুখবরের সঙ্গে দ্বিতীয়টি ‘ফ্রি’ মিলবে

গত সপ্তাহে শেয়ার বাজারে জমা দেওয়া এক ফাইংলিংয়ে ইউকো ব্যাঙ্ক জানিয়েছে, ভুল করে ‘গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে ভুল ভাবে’ ক্রডিট হয়েছে ৮২০ কোটি টাকা। এর মধ্যে থেকে ইতিমধ্যেই ব্যাঙ্ক ৬৪৯ কোটি টাকা ফেরাতে সক্ষম হয়েছে। যা এই মোট অর্থের প্রায় ৭৯ শতাংশ। তবে এখনও প্রায় ১৭১ কোটি টাকা ভুল অ্যাকাউন্টে পড়ে রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এদিকে ইতিমধ্যেই ইমিডিয়েট পেমেন্ট সিস্টেম বা আইএমপিএস স্থগিত করেছে কলকাতা ভিত্তিক রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক ইউকো। জানা গিয়েছে, গোলযোগের জেরেই বুধবার আইএমপিএস ট্রান্সফার বন্ধ করতে বাধ্য হয় ইউকো ব্যাঙ্ক। শেয়ার বাজারের এক ফাইলিংয়ে ইউকো জানায়, অন্য কোনও ব্যাঙ্কের গ্রাহরকা ইউকো ব্যাঙ্কের গ্রাহকদের আইএমপিএস-এর মাধ্যমে টাকা পাঠালে সেই লেনদেন ‘বাতিল হয়ে গিয়েছে’ বলে বার্তা আসছে। তবে যে গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানো হচ্ছে, তাঁর অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকে যাচ্ছে। আবার যে টাকা পাঠাচ্ছে, তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কাটলেও তা আবার ফিরে যাচ্ছে। এই আবহে একই টাকা দু’বার দু’জনের অ্যাকাউন্টে যাচ্ছে।

জানা গিয়েছে, গত ১০ থেকে ১৩ নভেম্বরের মধ্যে এই ঝামেলা দেখা যায়। এই আবহে বুধবার বন্ধ করে দেওয়া হয় আইএমপিএস ট্রান্সফার ব্যবস্থা। জানা যায়, ইউকো ব্যাঙ্কের গ্রাহকদের আইএমপিএস-এর মাধ্যমে টাকা পাঠালে তা ইউকোর সেই গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে ঢুকছে, তার সঙ্গে যে টাকা পাঠাচ্ছে, তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কাটছে না। বা টাকা কাটলেও আবার তা ফেরত চলে আসছে। এই আবহে ইউকো ব্যাঙ্কের তরফ থেকে বিবৃতি প্রকাশ করে শুধু বলা হয়েছে, ‘সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে আপাতত ব্যাঙ্ক আইএমপিএস চ্যানেলটিকে অফলাইন করে দিয়েছে। এই ব্যবস্থার সঙ্গে যুক্ত সকলের সঙ্গে এই নিয়ে আলোচনা করছে ব্যাঙ্ক। দ্রুত এই সমস্যার সমাধান সূত্র বেরিয়ে আসবে বলে আশা করা হচ্ছে। এবং তারপরই ফের নতুন করে চালু করা হবে আইএমপিএস ট্রান্সফার। পুলিশকে ইতিমধ্যেই বিষয়টি জানানো হয়েছে। তারাও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।’

প্রসঙ্গত, ইমিডিয়েট পেমেন্ট সিস্টেম বা আইএমপিএস হল এমন একটি ব্যবস্থা যার মাধ্যমে একটি ব্যাঙ্কের থেকে অন্য ব্যাঙ্কের গ্রাহককে অনলাইনে টাকা পাঠানো সম্ভব। সঙ্গে সঙ্গেই সেই টাকা একজন গ্রাহকের কাছ থেকে অন্য গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে চলে যায়। এদিকে আইএমপিএস-এর মাধ্যমে দৈনিক পাঁচ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লেনদেন করা যায়। এদিকে আইএমপিএস করলে লেনদেন প্রতি ৫ থেকে ১৫ টাকা পর্যন্ত চার্জ কাটতে পারে সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্ক।