আবেদ আলীসহ ৩ জনের ব্যাংক হিসাব জব্দ

বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের (বিসিএস) পরীক্ষাসহ গত ১২ বছরে ৩০টি নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসে অভিযুক্ত পিএসসির সাবেক গাড়িচালক সৈয়দ আবেদ আলী জীবন ও তার ছেলে সৈয়দ সোহানুর রহমান সিয়ামসহ তিন জ‌নের ব্যাংক হিসাব স্থগিত করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)। একইস‌ঙ্গে তা‌দের হিসা‌বের সব তথ‌্য চে‌য়ে‌ছে সংস্থা‌টি।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) তাদের ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয় বলে জানিয়েছে  বিএফআইউ’র একটি সূত্র। এ দিন বিএফআইইউয়ের পক্ষ থেকে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

আগামী ৩০ দিন তাদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট সব অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা উত্তোলন বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের অ্যাকাউন্ট থেকে লেনদেনসহ যাবতীয় তথ্য আগামী পাঁচ দিনের মধ্যে পাঠাতে বলা হয়েছে।

বিএফআইইউ থেকে ব্যাংকগুলোতে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, সৈয়দ আবেদ আলী জীবন, তার ছেলে সৈয়দ সোহানুর রহমান সোহান, স্ত্রী শাহরিন আক্তার শিল্পী এবং আবেদ আলীর মালিকানাধীন ঊসা রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড বিল্ডার্সের অ্যাকাউন্ট আগামী ৩০ দিনের জন্য অবরুদ্ধ (ফ্রিজ) করার নির্দেশনা দেওয়া হলো। মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

চিঠিতে আবেদ আলীর বাবা সৈয়দ আব্দুর রহমান ও মা জয়গুন নেসার নাম উল্লেখ রয়েছে। তার গ্রামের বাড়ি উল্লেখ করা হয়েছে মাদারীপুর এবং ঢাকার ঠিকানা আগারগাঁও তালতলা সরকারি কলোনি ও মিরপুর উল্লেখ রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বিএফআইউ’র এক  কর্মকর্তা বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) ইতোমধ্যে ১৭ জন‌কে গ্রেফতার ক‌রে‌ছে। তা‌দের ম‌ধ্যে আবেদ আলী ও তার ছে‌লেসহ তিন জ‌নের হিসা‌ব জব্দ ও তথ‌্য চাওয়া হ‌য়ে‌ছে। দুর্নী‌তি দমন ক‌মিশ‌নসহ বি‌ভিন্ন সংস্থার সহায়তায় গ্রেফতার হওয়া বা‌কি‌দের তথ‌্যও সংগ্রহ করা হ‌চ্ছে। তা‌দের ব‌্যাংক হিসা‌বও জব্দ করা হ‌বে।

আরও পড়ুন:

প্রশ্নপত্র ফাঁস: সংশ্লিষ্টতা পেলে মানি লন্ডারিং মামলা

প্রশ্নপত্র ফাঁস: ১০ আসামি কারাগারে

প্রশ্নফাঁস: স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেবেন আবেদ আলীসহ ৭ আসামি