সারা দেশে যেসব স্থানে পালিত হবে ‘ব্লকেড’

কোটা সংস্কার এবং ২০১৮ সালের পরিপত্র পুনর্বহালের দাবিতে সারা দেশে ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি পালন করে আসছে শিক্ষার্থীরা। এরই ধারাবাহিকতায় এবার সকাল-সন্ধ্যা ব্লকেড কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন তারা।

বুধবার (১০ জুলাই) সকাল ১০টা থেকে সারা দেশে সড়ক-মহাসড়ক ও রেলপথ অবরোধ করে ‘বাংলা ব্লকেড’ পালনের আহ্বান জানিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) সন্ধ্যা ৬টার দিকে সংবাদ সম্মেলনে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের নেতারা এই ঘোষণা দেন।

এ সময় তারা জানান, বুধবার থেকে সকাল-সন্ধ্যা ব্লকেড কর্মসূচি থাকবে। সকাল ১০টা থেকে ব্লকেড কর্মসূচি শুরু হবে। সড়ক ও রেলপথ ব্লকেডের আওতাভুক্ত থাকবে। তবে সাংবাদিক ও জরুরি সেবার পরিবহনগুলো এই ব্লকেড কর্মসূচির আওতামুক্ত থাকবে।

বুধবার যেসব স্থানে ব্লকেড চলবে

ঢাকার ভেতরে
শাহবাগ, কারওয়ানবাজার, ইন্টারকন্টিনেন্টাল মোড়, ফার্মগেট, চানখারপুল মোড়, চানখারপুল ফ্লাইওভারে ওঠার মোড়, বঙ্গবাজার, শিক্ষা চত্বর, মৎস্য ভবন, জিপিও, গুলিস্তান, সায়েন্স ল্যাব, নীলক্ষেত, রামপুরা ব্রিজ, ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক, মহাখালী, বাংলামোটর, আগারগাঁও। 

ঢাকার বাইরে
রাজশাহী (রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রুয়েট, রাজশাহী কলেজ), সিলেট-সুনামগঞ্জ রোড (শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়), ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক (কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়), বটতলা চত্বর (ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়), ময়মনসিংহ (বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়), রংপুর মডার্ন মোড় (বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়), দেওয়ান হাট (চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও অধিভুক্ত কলেজগুলো), খুলনা, নতুন রাস্তা, দৌলতপুর (জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা), গাজীপুর (আওয়ালে বদরে আলম সরকারি কলেজ, গাজীপুর), নোয়াখালী প্রেসক্লাব (নোয়াখালী জেলার শিক্ষার্থীবৃন্দ), ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের সামনে, ঢাকা-পাবনা মহাসড়ক (পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়), ঢাকা-দিনাজপুর রোড (হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়), ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক (জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়), ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক (জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়), ঢাকা-পটুয়াখালী মহাসড়ক (বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়), ঢাকা-বরিশাল (বিএম কলেজ)।