Jadavpur University: যাদবপুরে PhD-র ভর্তি তালিকায় বেনিয়ম, উপাচার্যকে ঘিরে বিক্ষোভ পড়ুয়াদের

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচডিতে ভর্তির তালিকায় বেনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ইতিমধ্যেই এনিয়ে তদন্ত করার কথাও জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তারই মধ্যে এবার উপাচার্য ভাস্কর গুপ্তকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখালেন পড়ুয়ারা। মঙ্গলবার রাতে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের তরফে অরবিন্দ ভবনে উপাচার্যকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখানো হয়। তাদের অভিযোগ, এসএফআইয়ের এক প্রাক্তন নেতাকে নিয়ম না মেনেই আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগে পিএইচডিতে ভর্তির সুযোগ দেওয়া হয়েছে। 

আরও পড়ুন: আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিতে হবে, যাদবপুরে ঘেরাও র‌্যাগিংয়ে অভিযুক্তদের

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রের খবর, মঙ্গলবার রাতে ছাত্রদের একটা বড় অংশ অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হন। তাদের অভিযোগ, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের পিএইচডি ভর্তি তালিকা নিয়ে বারবার প্রশ্ন উঠেছে। তা নিয়ে তদন্তের কথা থাকলেও কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে সেরকমভাবে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। মঙ্গলবার ফের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে বেনিয়ম দেখা গিয়েছে। তাদের অভিযোগ, ২০২৩ এবং ২০২৪ সালের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের পিএইচডি ভর্তি তালিকায় প্রাক্তন এসএফআই নেতার নাম রয়েছে। যোগ্যতা না থাকা সত্ত্বেও তাঁকে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। সেক্ষেত্রে শুধুমাত্র প্রভাব খাটিয়ে ওই প্রাক্তন এসএফআই নেতা পিএইচডিতে ভর্তির সুযোগ দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ।

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগে পিএইচডিতে ভর্তি নিয়ে অভিযোগ আগে থেকেই উঠছিল। কয়েকদিন আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মসমিতির বৈঠকে এনিয়ে কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটি এর তদন্ত করবে বলেও জানিয়েছিল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু, পড়ুয়াদের অভিযোগ, তারপরেও অভিযুক্তের নাম মঙ্গলবার প্রকাশ হওয়া তালিকায় ছিল। সেই কারণেই মূলত এদিন বিক্ষোভ দেখান পড়ুয়ারা। 

যদিও প্রাক্তন এসএফআই নেতা এ বিষয়ে কিছু মন্তব্য করতে চাননি। তবে এসএফআইয়ের অন্য এক নেত্রীর বক্তব্য, তারা শিক্ষা ক্ষেত্রে কোনও রকমের দুর্নীতি মেনে নেবেন না। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় পিএইচডিতে ভর্তি সংক্রান্ত বেমিয়ম নিয়ে  এসএফআই প্রথম দিন থেকেই তদন্তের দাবি করছে। তাদের দাবি, ঘটনার নিরপেক্ষ এবং স্বচ্ছ তদন্ত করতে হবে। সংগঠনের স্পষ্ট বক্তব্য, তারা কোনও দুর্নীতিকে সমর্থন করবে না। তাছাড়া বর্তমানে যার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তিনি এখন এসএফআইয়ের সঙ্গে যুক্ত নন বলেই তাদের দাবি।