Muslim women maintenance: ডিভোর্সি মুসলিম মহিলারাও স্বামীর থেকে আইনত খোরপোষ পেতে পারেন, রায় সুপ্রিম কোর্টের

স্বামীর থেকে খোরপোষ চাইতে পারবেন মুসলিম মহিলারাও। ডিভোর্সের পরে কোড অফ ক্রিমিনাল প্রসিডিওরের ১২৫ ধারার আওতায় তাঁরা স্বামীর থেকে খোরপোষ চেয়ে মামলা করতে পারেন। এমনই রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট। এক মুসলিম ব্যক্তির আর্জি খারিজ করে বুধবার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি বিভি নাগরত্না এবং বিচারপতি অগাস্টিন জর্জ মাসিহের বেঞ্চ জানিয়েছে যে ধর্মনিরপেক্ষ আইনের উপরে প্রাধান্য পাবে না ১৯৮৬ সালের মুসলিম মহিলাদের (ডিভোর্সের ক্ষেত্রে অধিকার রক্ষা) আইন। দুই বিচারপতি সহমত পোষণ করলেও তাঁরা দুটি পৃথক রায় দিয়েছেন।

মুসলিম ব্যক্তির মামলা খারিজ, কী বলল সুপ্রিম কোর্ট?

যে মামলার প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্ট সেই রায় দিয়েছে, তা দায়ের করেছিলেন এক মুসলিম ব্যক্তি। কোড অফ ক্রিমিনাল প্রসিডিওরের ১২৫ ধারার আওতায় ডিভোর্সি স্ত্রী’কে অন্তর্বর্তীকালীন খোরপোষ প্রদানের যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল, সেটার বিরুদ্ধে আবেদন জানিয়ে শীর্ষ আদালতে মামলা করেছিলেন। তাঁর সেই মামলা খারিজ করে দিয়ে বিচারপতি নাগরত্না বলেন, ‘আমরা এই আর্জি খারিজ করে দিচ্ছি। আর আমরা এটা বলছি যে শুধুমাত্র বিবাহিত মহিলা নন, সব মহিলাদের ক্ষেত্রেই প্রয়োজ্য হবে কোড অফ ক্রিমিনাল প্রসিডিওরের ১২৫ ধারা।’

আরও পড়ুন: Who is goon Jayanta Singh: ‘সাঁড়াশি দিয়ে টানা হচ্ছে কিশোরের যৌনাঙ্গ’, এই ‘তালিবানি শাসন’ চালানো জয়ন্ত কে?

আইনজীবীর সওয়াল

মুসলিম ব্যক্তির আইনজীবী দাবি করেন, ১৯৮৬ সালের মুসলিম মহিলাদের (ডিভোর্সের ক্ষেত্রে অধিকার রক্ষা) আইন হল বিশেষ আইন। তাতে কোড অফ ক্রিমিনাল প্রসিডিওরের ১২৫ ধারার থেকে অনেক বেশি সুবিধা আছে। ১৯৮৬ সালের আইনের আওতায় ডিভোর্স হয়ে যাওয়া মুসলিম মহিলাদের বাকি জীবনের জন্য বেশি ‘যুক্তিসঙ্গত এবং ন্যায্য’ সুবিধা মেলে।

আরও পড়ুন: WB Monsoon Rain Forecast: আজ ভারী বৃষ্টি ৬ জেলায়, জারি লাল সতর্কতাও, কাল থেকে বাংলার কোথায় বর্ষণ বাড়বে?

(বিস্তারিত পরে আসছে)